Wednesday, 3 January 2018

স্বপ্ন

মেয়েটি হারিয়ে গেছে
চারপাশের মাঠ ঘাস আকাশ আজ তার অজানা
অচেনা মানুষজন
আজ মেয়েটি সুন্দর
দুধ সাদা পোশাকে তার পৃথুলা গড়নটা ঢেকে গেছে
মুখের উপরে এলোমেলো চুল তাকে অবিন্যস্ত করেছে
তবু আজ সে সুন্দর

অজানা একটা বাগানে আজ ভোজ বসেছে
লতাপাতা ডালপালার ফাঁক দিয়ে লোভনীয় খাবারের সারি
দুর্ভিক্ষের পর এ যেন এক অপার্থিব চড়ুইভাতি

কেউ যেন মেয়েটিকে বশ করেছে
মেয়েটি আজ নিজেকে মেলে দিচ্ছে উদার উদাসীনতায়
সারি সারি হাত শ্বাপদের মত তার দিকে ছুটে চলেছে
মেয়েটি নিরুপায়
তবু আজ সে সুন্দর
বড় সুন্দর

অস্থির গোধূলিতে একটা মায়াবী নীলচে জাহাজ জলে ভেসে এলো
পাশে তার চিড়িয়াখানা
আদিমতায় আচ্ছন্ন পথভ্রান্ত পথিকের পা থমকে যায়
জাহাজটা আবার ডুবে যাচ্ছে

খেলোয়াড় মন আজ পোড়োবাড়ির উঠোনে হাঁক দেয়
দরজায় ঠেস দিয়ে বসে
চৌকাঠে পা তুলে দেয়
নির্লজ্জের মতো দু হাত বাড়িয়ে বলে "ভাত খাবো, ভাত দাও"
আর রাঁধুনির হাতে ধরা চিরুনি থমকে যায়, "দাঁড়াও, আগে চুল আঁচড়াই"

হিংস্রতা আজ অনেক নিম্নস্তরে
চিতাবাঘ আজ বেড়ালের গোত্র
গুঁড়ি মেরে বসে একদৃষ্টে তাকিয়ে থাকে - তপস্বী যেন
পাঁচটা সাদা লক্ষীপ্যাঁচা আজ শিকার হয়
গা পুড়ে যায় জ্বরে
পলিথিনে মোড়া চিতা জলের খোঁজে টিউবওয়েল খুঁজে মরে

পৃথুলা মেয়েটি আজ নাচে 
চারিদিকে জমে ওঠে আলো, বেজে ওঠে তার
হিসেবে রাখে না কেউ
ঠোঁটে রং মাখে
বিশ্রী দাঁতের পাটি উঁচু হয়ে থাকে
আর তার পিছনে মাড়ির গহীনে লুকিয়ে থাকা ঝামার প্রাচীর জেগে থাকে
হলুদ দাঁতের ফাঁকে আটকে থাকে মরা মাছের চোখ, অবিরাম
তবু আজ মেয়েটি সুন্দর
বড় সুন্দর।

No comments:

Post a comment